জুন পর্যন্ত এনজিও কিস্তি না আদায় নিশ্চিতে ৯ সদস্যের মনিটরিং সেল

জুন পর্যন্ত এনজিও কিস্তি না আদায় নিশ্চিতে ৯ সদস্যের মনিটরিং সেল। করোনা ভাইরাসের প্রভাবে দেশের ব্যবসা-বাণিজ্য স্থাবির হয়ে পড়েছে। করোনার সংক্রমণ ঠেকাতে সবকিছু বন্ধ করে বাড়িতে থাকতে বাধ্য করা হচ্ছে। এমন পরিস্থিতিতে ক্ষুদ্র ঋণ গ্রহীতাদের মধ্যে কিছুটা স্বস্তি দিয়েছে মাইক্রোক্রেডিট রেগুলেটরি অথরিটি।

দেশের যেসব ক্ষুদ্র উদ্যোক্তা এনজিও বা ক্ষুদ্র ঋণ প্রতিষ্ঠান থেকে ঋণ নিয়ে ব্যবসা পরিচালনা করছেন সেসব প্রতিষ্ঠান আগামী জুন পর্যন্ত কোনো কিস্তি জোর করে আদায় করতে পারবে না, তবে কেউ সেচ্ছায় দিলে নিতে পারবেন উল্লেখ করে প্রজ্ঞাপন জারি করেছে সংস্থাটি।

জারি করা প্রজ্ঞাপনের নির্দেশনা সঠিকভাবে পালন হচ্ছে কিনা তা দেখভালে সম্প্রতি মনিটরিং সেলও গঠন করেছে অথরিটি। মনিটরিং সেল গঠন সংক্রান্ত অফিস আদেশে বলা হয়, বিশ্বব্যাপী মহামারি আকারে ছড়িয়ে পড়া করোনা ভাইরাস বাংলাদেশেও দ্রুত ছড়িয়ে পড়েছে। এ প্রেক্ষিতে ক্ষুদ্র ঋণ প্রতিষ্ঠানসমূহের মাঠ পর্যায়ের কর্মকাণ্ডে নেতিবাচক প্রভাব পড়ছে।

শিক্ষার সব খবর সবার আগে জানতে DailyResultBD এর ইউটিউব চ্যানেলের সাথেই থাকুন। আমদের ইউটিউব চ্যানেল সাবস্ক্রাইব করুন YouTube Channel

অথরিটি ইতিমধ্যে ক্ষুদ্র ঋণ প্রতিষ্ঠানসমূহের করণীয় বিষয়ে প্রজ্ঞাপন জারি করেছে। উল্লেখিত সার্কুলার এবং উদ্ভূত পরিস্থিতিতে মাঠ পর্যায়ের সঙ্গে সার্বক্ষণিক যোগাযোগের জন্য অথরিটি ৯ সদস্যের মনিটরিং সেল গঠন করেছে। প্রত্যেক সদস্যদের মোবাইল নম্বরও দেয়া হয়েছে। ক্ষুদ্র ঋণ সেক্টর সম্পর্কিত যে কেউ কোনো কিছু জানতে চাইলে কমিটির সদস্যেদের সঙ্গে যোগাযোগ করতে পারবে।

ঢাকার এক পরিচালককে সমন্বয়ক এবং আট বিভাগের আট উপপরিচালককে সদস্য করে এ সেল গঠন করা হয়েছে। সেলের সমন্বয়ক হচ্ছেন অথরিটির পরিচালক মোহাম্মদ ইয়াকুব হোসেন, মোবাইল নম্বর ০১৮১৫৫০৩৯৭৫।

এছাড়া কমিটির অন্য আট সদস্য হচ্ছেন- উপপরিচালক কে এ এম এম রইসুল ইসলাম, ০১৭১৬৪২৭২১৭ (ঢাকা), মো. জিল্লুর রহমান ০১৯১২২৬৭২৭৩ (চট্টগ্রাম), মুহাম্মদ শহিদুল ইসলাম, ০১৭১২০৮২০৫৭ (রাজশাহী), মোহাম্মদ আব্দুল মান্নান, ০১৭১১৪৬১৩০৩ (বরিশাল), মোহাম্মদ কামাল হোসেন, ০১৭১০৮০৬৩০৬ (ময়মনসিংহ), প্রদীপ কুমার ঘোষ, ০১৭১৬৫১৫২১৫ (রংপুর), মো. আবু বকর সিদ্দিক, ০১৭১১৭০৯৪৫৮ (খুলনা) এবং মুহাম্মদ মিজানুর রহমান, ০১৫৫২৪৪০৯২১ (সিলেট)।

আগামী জুন পর্যন্ত নতুন করে কাউকে ঋণ খেলাপি ঘোষণা করা যাবে না উল্লেখ করে গত ২২ মার্চ এ সংক্রান্ত প্রজ্ঞাপন জারি করে সনদপ্রাপ্ত সব ক্ষুদ্রঋণ প্রতিষ্ঠানের প্রধান নির্বাহী কর্মকর্তার কাছে পাঠিয়েছে মাইক্রোক্রেডিট রেগুলেটরি অথরিটি।

শিক্ষা সংক্রান্ত সকল তথ্য পেতে আমদের ইউটিউব চ্যানেল সাবস্ক্রাইব করুন YouTube Channel

এরপরও এ প্রজ্ঞাপনের ভুল ব্যাখা দিয়ে দেশের কিছু এলাকায় ক্ষুদ্র ঋণ গ্রহীতাকে কিস্তি পরিশোধে বাধ্য করা হচ্ছে। বিষয়টি স্পষ্ট করার জন্য গত ২৫ মার্চ আরও একটি প্রজ্ঞাপন জারি করে অথরিটি।

Related Content