চলতি নভেম্বর মাসেই শিক্ষক নিয়োগের গণবিজ্ঞপ্তি প্রকাশ

চলতি নভেম্বর মাসেই শিক্ষক নিয়োগের গণবিজ্ঞপ্তি প্রকাশ জানিয়েছেন বেসরকারি শিক্ষক নিবন্ধন ও প্রত্যয়ন কর্তৃপক্ষের (এনটিআরসিএ) সচিব মো ওবায়দুর রহমান। তিনি বলেছেন, শূন্যপদের তথ্য দুই অধিদপ্তর থেকে যাচাই হয়ে এসেছে। মাধ্যমিক ও উচ্চ শিক্ষা অধিদপ্তর থেকে শিগগিরই স্কুল-কলেজের শূন্যপদের তথ্য যাচাই হয়ে চলে আসবে বলে আমরা আশা করছি। শূন্যপদের তথ্য পাওয়ার পরই চতুর্থ গণবিজ্ঞপ্তি প্রকাশে শিক্ষা মন্ত্রণালয়ের অনুমতি চাওয়া হবে। বৃহস্পতিবার দুপুরে এ ঘোষণা দেন তিনি।

তিনি বলেন, মাদরাসা শিক্ষা অধিদপ্তর ও কারিগরি শিক্ষা অধিদপ্তর থেকে যাচাই হওয়া শূন্যপদের তালিকা এসেছে। মাধ্যমিক ও উচ্চ শিক্ষা অধিদপ্তর থেকে দু-একদিনের মধ্যেই শূন্যপদের তথ্য চলে আসবে। নভেম্বরেই চতুর্থ গণবিজ্ঞপ্তি প্রকাশ করা হবে।

জানা গেছে, ইতোমধ্যে চতুর্থ ধাপে বেসরকারি শিক্ষক নিয়োগ প্রক্রিয়া শুরু করার প্রস্তুতি শুরু করেছে প্রার্থীরা। বেসরকারি স্কুল, কলেজ ও মাদরাসা শিক্ষা প্রতিষ্ঠান থেকে ৭৪ হাজারে বেশি এমপিওভুক্ত শিক্ষক শূন্যপদের তালিকা সংগ্রহ করা হয়েছে। সেগুলো যাচাই বাছাই করতে অধিদপ্তরগুলোতে পাঠানো হয়েছে।

Read more- চলতি মাসে চতুর্থ গণবিজ্ঞপ্তি প্রকাশ করতে চায় এনটিআরসিএ।বেসরকারি শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানে শিক্ষক নিয়োগের লক্ষ্যে আগামী এপ্রিল মাসে চতুর্থ গণবিজ্ঞপ্তি প্রকাশ করতে চায় বেসরকারি শিক্ষক নিবন্ধন ও প্রত্যয়ন কর্তৃপক্ষ (এনটিআরসিএ)। যদিও এখনো এ বিষয়ে শিক্ষা মন্ত্রণালয়ের অনুমোদনসহ আনুসাঙ্গিক কোনো কাজই শুরু করেনি সংস্থাটি। এই অবস্থায় এপ্রিলে গণবিজ্ঞপ্তি পাওয়া নিয়ে ধোঁয়াশার মধ্যে রয়েছেন নিবন্ধিত প্রার্থীরা।

এ প্রসঙ্গে জানতে চাইলে এনটিআরসিএ সদস্য (পরীক্ষা মূল্যায়ন ও প্রত্যয়ন) এ বি এম শওকত ইকবাল শাহীন বলেন, আমরা মার্চের শেষ দিকে ইরিকুইজিশনের মাধ্যমে শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানগুলোর শূন্য পদের তথ্য সংগ্রহ করবো। এরপর এপ্রিলে চতুর্থ গণবিজ্ঞপ্তি প্রকাশ করা হবে। মন্ত্রণালয়ের সাথে এ বিষয়ে আলোচনা হয়েছে কিনা এমন প্রশ্নের জবাবে তিনি আরও বলেন, বিষয়টি নিয়ে এখনো মন্ত্রণালয়ের সাথে আলোচনার সময় হয়নি। শূন্য পদের তথ্য সংগ্রহ করার পর তাদের সাথে এ বিষয়ে আলোচনা করা হবে।

আলী নামে আরেক প্রার্থী জানান, গতকাল আমাদের সহযোদ্ধাদের আন্দোলনের প্রেক্ষিতে এনটিআরসিএ মিথ্যে আশ্বাস দিতে পারে। এর আগেও তারা অনেক বিষয়ে কথা দিয়েছিল। তবে কোনো কাজই ঠিক সময়ে শেষ করতে পারেনি এনটিআরসিএ। আন্দোলনের মাথায় এমন আশ্বাসের বুলি শুনিয়েছেন বলেই অমার মনে হয়। এদিকে এনটিআরসিএ বলছে, তৃতীয় গণবিজ্ঞপ্তিতে চূড়ান্ত সুপারিশপ্রাপ্তদের যোগদান শেষ হলে তারা শূন্যপদের তথ্য সংগ্রহ শুরু করবেন। শূন্য পদের তথ্য সংগ্রহ শেষ হলে শিক্ষক নিয়োগের চতুর্থ গণবিজ্ঞপ্তি প্রকাশের বিষয়ে মন্ত্রণালয়ের সাথে আলোচনা করা হবে। এরপর নির্ধারিত সময়ে গণবিজ্ঞপ্তি প্রকাশ করবেন তারা।

নিবন্ধনধারীরা বলছেন, চতুর্থ গণবিজ্ঞপ্তি প্রকাশের লক্ষ্যে এনটিআরসিএ যে পরিকল্পনা গ্রহণ করেছে সেটি বাস্তবায়ন করা কঠিন। কেননা এনটিআরসিএর নিজস্ব কোনো সিস্টেম এনালিস্ট নেই। এছাড়া চতুর্থ গণবিজ্ঞপ্তি প্রকাশের বিষয়ে এখনো শিক্ষা মন্ত্রণালয়ের সাথে কোনো আলোচনা করেনি এনটিআরসিএ। ফলে এপ্রিলে গণবিজ্ঞপ্তি পাওয়া নিয়ে ধোঁয়াশার মধ্যে রয়েছেন তারা।আগামী ২০ ফেব্রুয়ারি তৃতীয় গণবিজ্ঞপ্তিতে চূড়ান্ত সুপারিশপ্রাপ্ত শিক্ষকদের যোগদান শেষ হবে। এরপর মহিলা কোটার কিছু প্রার্থী নিয়ে সৃষ্ট জটিলতা সমাধানে কাজ শুরু করবে এনটিআরসিএ।

আর ২৭ ফেব্রুয়ারির পর দ্বিতীয় মেধাতালিকা প্রকাশের কাজ শুরু হবে। দ্বিতীয় মেধাতালিকা প্রকাশের পর মার্চের শেষ নাগাদ ইরিকুইজিশনের মাধ্যমে শূন্য পদের তথ্য সংগ্রহের কথা জানিয়েছে এনটিআরসিএ।১৬তম শিক্ষক নিবন্ধন পরীক্ষায় উত্তীর্ণ মো. হামজা নামে এক চাকরি প্রত্যাশী জানান, আমাদের এক সার্টিফিকেট দিতেই এনটিআরসিএ ৩ বছরের বেশি সময় নিয়েছে। এই অবস্থায় দুই মাসের মধ্যে তারা চতুর্থ গণবিজ্ঞপ্তি দেবে এটি বিশ্বাসযোগ্য নয়। আনুষ্ঠানিক বিজ্ঞপ্তি প্রকাশের আগে এনটিআরসিএর কথা বিশ্বাস হবে না।

The NTRCA wants to publish the fourth mass notification in April. The Private Teacher Registration and Certification Authority (NTRCA) wants to publish the fourth mass notification in April for the recruitment of teachers in private educational institutions. However, the agency has not yet started any related work with the approval of the Ministry of Education. In this situation, the registered candidates are in the fog of getting public notice in April.

শিক্ষার সব খবর সবার আগে জানতে DailyResultBD.com ইউটিউব চ্যানেল সাবস্ক্রাইব করুন YouTube Channel জাতীয় বিশ্ববিদ্যালয়ের সকল নোটিশ দেখুন এখানে একসাথে National University Notice Board আমাদের ফেসবুক গ্রুপে জয়েন করুন Facebook Group