মাদ্রাসা শিক্ষা বোর্ডের উপবৃত্তি ২০২০ সংক্রান্ত বিজ্ঞপ্তি

মাদ্রাসা শিক্ষা বোর্ডের উপবৃত্তি ২০২০ সংক্রান্ত বিজ্ঞপ্তি প্রকাশিত হয়েছে। ২০১৯-২০ অর্থবছরে থেকে সব ধরনের বৃত্তি পাওয়া শিক্ষার্থীদের টাকা জিটুপি পদ্ধতিতে অনলাইনে ইএফটির মাধ্যমে সরাসরি ব্যাংক অ্যাকাউন্টে পাঠানো হবে। তবে, শিক্ষা প্রতিষ্ঠানগুলো থেকে আসা শিক্ষার্থীদের তথ্যের বিভিন্ন রকম ভুল রয়েছে৷ ফলে শিক্ষার্থীদের বৃত্তির টাকা পাঠাতে সমস্যার সৃষ্টি হচ্ছে। এ সমস্যা দূর করতে মাদরাসাগুলোকে শিক্ষার্থীদের তথ্য সংশোধন করাতে বলেছিল মাদরাসা শিক্ষা অধিদপ্তর। আজ বৃহস্পতিবারের (১৮ জুন) মধ্যে শিক্ষার্থীদের তথ্য সংশোধন করে তালিকা মাদরাসা শিক্ষা অধিদপ্তরে পাঠাতে বলা হয়েছিল মাদরাসাগুলোকে। তবে, সে সময় বাড়ানো হয়েছে। আগামী ২৩ জুন পর্যন্ত বৃত্তি পাওয়া মাদরাসা শিক্ষার্থীদের তথ্য সংশোধন করা যাবে।

মাদরাসা শিক্ষা অধিদপ্তর থেকে বিষয়টি জানিয়ে চিঠি সব মাদরাসায় হয়েছে।

জানা গেছে, এমআইএস অনলাইন সফটওয়্যারে প্রকাশিত বৃত্তিপ্রাপ্ত শিক্ষার্থীদের খসড়া তালিকার ভুল সংশোধন করে ও ২০১৯ সালের ইবতেদায়ি সমাপনী ও জেডিসিতে বৃত্তিপ্রাপ্ত শিক্ষার্থীদের তথ্যসহ বাদ যাওয়া ও নতুন শিক্ষার্থীদের তথ্য সংযোজন-বিয়োজন করে সংশোধিত চূড়ান্ত তালিকা ইমেইলে মাদরাসা শিক্ষা অধিদপ্তরের পাঠাতে বলা হয়েছে শিক্ষা প্রতিষ্ঠানগুলোকে। প্রিন্ট করা সংশোধিত তালিকা প্রতিষ্ঠান প্রধান বা দায়িত্বপ্রাপ্ত কর্মকর্তার স্বাক্ষর ও সিল নিয়ে তার সফটকপি ইমেইলে (dme.stipend.fl@gmail.com) পাঠাতে হবে প্রতিষ্ঠানগুলোকে। Madrasa Board Scholarship/ Stipend লগইন লিঙ্ক http://103.48.16.248:8080/HSP-MIS/login?

শিক্ষার সব খবর সবার আগে জানতে DailyResultBD এর ইউটিউব চ্যানেলের সাথেই থাকুন। আমদের ইউটিউব চ্যানেল সাবস্ক্রাইব করুন YouTube Channel নতুন বিকাশ অ্যাপ থেকে নিজের একাউন্ট খুলুন মিনিটেই, শুধুমাত্র জাতীয় পরিচয়পত্র দিয়ে। কোথাও যেতে হবে না! আর অ্যাপ থেকে একাউন্ট খুলে প্রথম লগ ইনে পাবেন ১০০ টাকা ইনস্ট্যান্ট বোনাস!সাথে আছে আরো অ্যাপ অফার: - প্রথম বার ২৫ টাকা রিচার্জে ৫০ টাকা ইনস্ট্যান্ট বোনাস .সর্বমোট ১৫০ টাকা বোনাস পাবেন একজন বিকাশ গ্রাহক। এছাড়া যারা একাউন্ট খুলেছেন তারাও বিকাশ এপ ডাউনলোড করে প্রথম প্রথম লগ ইনে পাবেন ১০০ টাকা ইনস্ট্যান্ট বোনাস! Bkash App Download Link

নির্দেশনায় বলা হয়, প্রতিষ্ঠান প্রধানের পাঠানো তালিকা অনুসারে বৃত্তির টাকা পাঠানোর ব্যবস্থা নেয়া হবে। তাই, ভুল বা ত্রুটিপূর্ণ তথ্যের জন্য কোনো শিক্ষার্থী বৃত্তির টাকা পেতে দেরি হলে প্রতিষ্ঠান প্রধান দায়ী থাকবেন। এছাড়া পাঠ বিরতিতে থাকা এবং সাধারণ শিক্ষা বোর্ড থেকে বৃত্তি পাওয়া শিক্ষার্থীদের তালিকা মাদরাসা শিক্ষা অধিদপ্তরে পাঠানো যাবে না। স্বাক্ষর ও সিল ছাড়া তালিকা পাঠানো হলে তা বাতিল বলে গণ্য করা হবে।

এছাড়া কারিগরি সহায়তার জন্য মাদরাসা শিক্ষা অধিদপ্তরের টেকনিক্যাল টিম এবং অর্থ মন্ত্রণালয়ের অর্থ বিভাগের এসপিএফএমএসপি প্রকল্পের টেকনিক্যাল টিমের সাথে যোগাযোগ করতে বলা হয়েছে মাদরাসাগুলোর প্রধানদের।

Related Content
DailyResultBD এর শিক্ষা সংক্রান্ত সকল তথ্য পেতে আমদের ইউটিউব চ্যানেল সাবস্ক্রাইব করুন YouTube Channel