মন্ত্রিসভা থেকে বাদ পড়লেন নুরুল ইসলাম নাহিদ

একাদশ জাতীয় সংসদে নির্বাচনে বিজয়ী হয়েও কোনো মন্ত্রণালয়ের দায়িত্বই পেলেন না বর্তমান শিক্ষামন্ত্রী নুরুল ইসলাম নাহিদ।

নতুন মন্ত্রীসভায় শিক্ষামন্ত্রীর দায়িত্ব পাচ্ছেন একাদশ জাতীয় সংসদে চাঁদপুর-৩ আসন থেকে নির্বাচিত সংসদ সদস্য (এমপি) ডা.দিপু মনি। এর আগে নবম জাতীয় সংসদে ডা. দিপু মনি বাংলাদেশের প্রথম মহিলা পররাষ্ট্রমন্ত্রী হিসেবে দায়িত্ব পালন করেন।

বিকাশ একাউন্টে ফ্রি ১৫০ টাকা বোনাস নিয়ে নিন !!নতুন বিকাশ অ্যাপ থেকে নিজের একাউন্ট খুলুন মিনিটেই, শুধুমাত্র জাতীয় পরিচয়পত্র দিয়ে। কোথাও যেতে হবে না! আর অ্যাপ থেকে একাউন্ট খুলে প্রথম লগ ইনে পাবেন ১০০ টাকা ইনস্ট্যান্ট বোনাস! - প্রথম বার ২৫ টাকা রিচার্জে ৫০ টাকা ইনস্ট্যান্ট বোনাস Bkash App Download Link

একাদশ সংসদের মন্ত্রিসভার সদস্য হিসেবে শপথ নেওয়ার জন্য আমন্ত্রণ পেয়েছেন ৪৬ জন সাংসদ। এর মধ্যে মন্ত্রী হিসেবে ২৪ জন, প্রতিমন্ত্রী হিসেবে ১৯ জন এবং ৩ উপমন্ত্রী জন। তবে এদের মধ্যে নেই বর্তমান শিক্ষামন্ত্রী নুরুল ইসলাম নাহিদের নাম।

প্রশ্নফাঁস আর কোমলমতি শিক্ষার্থীদের সিলেবাস বৃদ্ধি, জেএসসি-পিইসি পরীক্ষা চালুর কারণে ব্যাপক সমালোচিত শিক্ষামন্ত্রী নুরুল ইসলাম নাহিদও ঠাঁই পাননি মন্ত্রিসভায়। এবার তার মন্ত্রণালয়ের দায়িত্ব পেয়েছেন ডা. দীপু মনি। এ ছাড়া এ মন্ত্রণালয়ের উপ-মন্ত্রীর দায়িত্ব পেয়েছেন চট্টগ্রাম সিটি কর্পোরেশনের সাবেক মেয়র ও প্রয়াত আওয়ামী লীগ নেতা মহিউদ্দিন চৌধুরীর ছেলে মহিবুল হাসান চৌধুরী নওফেল।

যেসব কারণে সমালোচিত ছিলেন নুরুল ইসলাম নাহিদ

২০০৯ সাল থেকে টানা দুই মেয়াদে শিক্ষামন্ত্রী ছিলেন নাহিদ। ২০১৭ সালের ২৫ ডিসেম্বর এক অনুষ্ঠানে শিক্ষা প্রতিষ্ঠান পরিদর্শকদের প্রতিবেদন দেয়ার ক্ষেত্রে ‘সহনশীল মাত্রা’য় ঘুষ খাওয়ার বক্তব্য দিয়ে সমালোচিত হন নুরুল ইসলাম নাহিদ। এ ছাড়া একের পর এক বোর্ড পরীক্ষায় প্রশ্ন ফাঁস, জেএসসি-পিএসসি পরীক্ষা, পাঠ্যপুস্তকে ভুলসহ নানা কারণে সমালোচিত হন তিনি।

২০১৩ এবং ২০১৪ সালে দেশে মাধ্যমিক এবং উচ্চ মাধ্যমিকসহ বিভিন্ন পাবলিক পরীক্ষার প্রশ্নপত্র ফাঁস হওয়ার ঘটনা ঘটে। এসব ঘটনায় শিক্ষামন্ত্রী হিসেবে নাহিদ সারাদেশে ব্যাপক সমালোচিত হন।

Related Content