প্রাইমারি শিক্ষক নিয়োগের ফরম পূরনের নির্দেশনা,পরীক্ষার চুড়ান্ত সিলেবাস ও প্রস্তুতি

প্রাইমারি শিক্ষক নিয়োগের আবেদন ফরম পূরনের নির্দেশনা,পরীক্ষার চুড়ান্ত সিলেবাস ও প্রস্তুতি নিয়ে আজকে বিস্তারিত আলোচনা করা হবে। Primary School Teacher Jobs Circular 2020.

আবেদন শুরুর তারিখ : ২৫ অক্টোবর ২০২০ (সকাল ১০:৩০ হতে)
আবেদনের শেষ তারিখ : ২৪ নভেম্বর ২০২০ (রাত ১১:৫৯)
আবেদন ফি : সার্ভিস চার্জসহ ১১০ টাকা
আবেদন লিংক : dpe.teletalk.com.bd
প্রাথমিক শিক্ষক নিয়োগ পরীক্ষা- সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ে ‘সহকারী শিক্ষক’ নিয়োগের লিখিত (এমসিকিউ MCQ) পদ্ধতিতে গ্রহন করা হবে।

আবেদনের বয়সসীমা : ২০ অক্টোবর ২০২০ তারিখে সর্বনিম্ন বয়সসীমা ২১ বছর এবং ২৫ মার্চ ২০২০ তারিখে সর্বোচ্চ ৩০ বৎসর (মুক্তিযােদ্ধার সন্তান ও শারীরিক প্রতিবন্ধী আবেদনকারীর ক্ষেত্রে সর্বোচ্চ বয়সসীমা ২৫ মার্চ ২০২০ তারিখে ৩২ বৎসর)
বেতনস্কেল: ১১০০০- ২৬৫৯০ টাকা (গ্রেড-১৩)

শিক্ষার সব খবর সবার আগে জানতে DailyResultBD এর ইউটিউব চ্যানেলের সাথেই থাকুন। আমদের ইউটিউব চ্যানেল সাবস্ক্রাইব করুন YouTube Channel নতুন বিকাশ অ্যাপ থেকে নিজের একাউন্ট খুলুন মিনিটেই, শুধুমাত্র জাতীয় পরিচয়পত্র দিয়ে। কোথাও যেতে হবে না! আর অ্যাপ থেকে একাউন্ট খুলে প্রথম লগ ইনে পাবেন ১০০ টাকা ইনস্ট্যান্ট বোনাস!সাথে আছে আরো অ্যাপ অফার: - প্রথম বার ২৫ টাকা রিচার্জে ৫০ টাকা ইনস্ট্যান্ট বোনাস .সর্বমোট ১৫০ টাকা বোনাস পাবেন একজন বিকাশ গ্রাহক। এছাড়া যারা একাউন্ট খুলেছেন তারাও বিকাশ এপ ডাউনলোড করে প্রথম প্রথম লগ ইনে পাবেন ১০০ টাকা ইনস্ট্যান্ট বোনাস! Bkash App Download Link

যোগ্যতাঃ পুরুষ ও নারী উভয়ের ক্ষেত্রেই শিক্ষাগত যোগ্যতা স্নাতক করা হয়েছে। কোনো স্বীকৃত বিশ্ববিদ্যালয় থেকে দ্বিতীয় শ্রেণি বা সমমানের সিজিপিএসহ স্নাতক বা অনার্স অথবা সমমানের ডিগ্রি হতে হবে।

আবেদন প্রক্রিয়াঃ http://dpe.teletalk.com.bd ওয়েবসাইটে প্রবেশ করে অনলাইনে Application Form পূরণের নির্দেশনা পাওয়া যাবে। উক্ত নির্দেশনা অনুসরণপূর্বক অনলাইনে Application Form পূরণ করে Submit করা হলে ওয়েবসাইট হতে প্রার্থীর User IDসহ Unpaid স্ট্যাটাস সম্পন্ন Draft Applicant’s Copy তৈরি হবে যা প্রিন্ট করে আবেদনে প্রদত্ত তথ্য যাচাই করতে হবে।

আবেদন ফি জমা দানের পূর্বে Draft Applicant’s Copy একাধিকবার পড়ে প্রার্থী তার প্রদত্ত তথ্যের যথার্থতা সম্পর্কে নিশ্চিত হবেন। কোন ভুল পরিলক্ষিত হলে তার বিপরীতে আবেদন ফি জমা দেয়া যাবে না এবং এই বিজ্ঞপ্তির ৩নং অনুচ্ছেদ অনুসরণ করে নতুন করে Application Form সঠিক তথ্য দিয়ে পূরণপূর্বক নতুন User ID সংবলিত Unpaid স্ট্যাটাস সম্পন্ন Draft Applicant’s Copy প্রিন্ট নিয়ে পুনরায় প্রদত্ত তথ্য যাচাই করতে হবে।
ফি প্রদানঃ অফেরতযােগ্য ১০০.০০ (একশত) টাকা আবেদন ফি এবং টেলিটকের সার্ভিস চার্জ ১০.০০ (দশ) টাকাসহ একত্রে মােট ১১০.০০ (একশত দশ) টাকা পরিশােধ করতে হবে। আবেদন ফি পরিশােধের পরে আবেদনে প্রদত্ত মােবাইল নম্বরে SMS-এর মাধ্যমে আবেদনকারীকে User ID-সহ একটি Password দেয়া হবে।

এরপরে http://dpe.teletalk.com.bd ওয়েবসাইটের “Download Applicant’s Copy” ট্যাবে ক্লিক করে মােবাইলে প্রাপ্ত User ID ও Password Submit করে Paid স্ট্যাটাস সম্পন্ন Final Applicant’s Copy পাওয়া যাবে যা প্রিন্ট করে নিয়ােগ প্রক্রিয়ার শেষাবধি আবশ্যিকভাবে সংরক্ষণ করতে হবে।

মানবণ্টনঃ
পরীক্ষাটি ১০০ নম্বরের মধ্যে
ক) লিখিত পরীক্ষায় ৮০ ও
খ) মৌখিক পরীক্ষায় বরাদ্দ থাকবে ২০ নম্বর।
এখানে লিখিত বলা হলেও পরীক্ষা কিন্তু এমসিকিউ আকারে নেওয়া হবে।
বাংলা, গণিত, ইংরেজি ও সাধারণ জ্ঞানের প্রতিটি বিষয় থেকে ২০টি করে মোট ৮০টি নৈর্ব্যত্তিক প্রশ্ন থাকবে। প্রতিটি প্রশ্নের মান ১। প্রতিটি ভুল উত্তরের জন্য ০.২৫ নম্বর কাটা যাবে।

প্রাইমারির সহকারি শিক্ষক নিয়োগ পরীক্ষার জন্য প্রস্তুতিঃ
ইংরেজি-২০ঃ এখানে ইংরেজি সাহিত্য থেকে খুব বেশি প্রশ্ন আসেনা। মূলত্ব প্রশ্ন আসে গ্রামার থেকে। এর জন্য পড়তে পারেন:
ক. Parts of Speech
খ. Preposition
গ. Right forms of verb
ঘ. Voice-Narration
ঙ. Phrase and Idioms
চ. Word Meaning & Synonym-Antonym
ছ. Spelling, Translation & Sentence Correction

জ. ৯ম-১০ম থেকে শুরু করে এইচ এসসি পর্যন্ত যে সকল সাহিত্যিকদের লেখা আছে, তাদের সাহিত্য কর্মের ওপর প্রস্তুতি নিতে হবে।
এছাড়াও বিভিন্ন নিয়োগ পরীক্ষার প্রশ্ন সমাধান করলে ভালো করা সম্ভব।

বাংলা ২০ঃ
ক) নবম-দশম শ্রেণীর বাংলা ব্যাকরণটি হতে পারে আপনার জন্য প্রস্তুতির মৌলিক ভিত্তি। এর সাথে আপনি বিভিন্ন নিয়োগ পরীক্ষার ব্যাকরণ থেকে আসা প্রশ্নগুলোর সমাধান জেনে নিবেন।
খ) বাংলা সাহিত্যের ক্ষেত্রে বিসিএসএস-এর বাংলা সাহিত্যের সিলেবাসটি ভালকরে পড়লেই প্রশ্ন কমন নিশ্চিৎ হবে। বিশেষ করে লক্ষ্য রাখবেন নবম-দশম শ্রেণী পর্যন্ত টেক্সবুকে সে সহক সাহিত্যিকদের সাহিত্য কর্ম আছে সেগুলোর দিকে একটু বেশি নজর দিবেন।

গণিত ২০ঃ
গণিতের ক্ষেত্রে সহজ সমাধান:
ক) ৫ম থেকে ৮ম শ্রেণী পর্যন্ত গণিতের পাঠ্যপুস্তকের অংকগুলো ভালকরে সমাধান করা।
খ) নবম-দশম শ্রেণীর অংকগুলো নিয়মিত প্র্যাকটিস করা।
গ) বিগত বছরের প্রাইমারি নিয়োগের গণিতগুলো চর্চার সাথে সাথে সাম্প্রতিক সরকারি নিয়োগের গণিত ও জ্যামিতিগুলোর সমাধান জানা।

 সাধারণ জ্ঞান ২০ঃ
ক) বাংলাদেশ: বাংলাদেশের ক্ষেত্রে যেভাবে প্রশ্ন আসে
১) বাঙালি জাতির ঐতিহাসিক ভিত্তি: নৃ-তাত্ত্বিক সুচনা, বাঙালি জাতি অভ্যুদয়, ভাষা আন্দোলন, মুক্তিযুদ্ধ।
২. বাংলাদেশের ভৌগলিক বিবরণ: ভৌগলিক অবস্থান ও বর্ণনা, কৃষি-পরিবেশ, জলবায়ু, শিল্প, এবং গুরুত্বপূর্ণ বিষয় প্রভৃতি।

৩) প্রশাসনিক ভিত্তি: সংবিধান, সরকারের অঙ্গসমুহের কার্যবলি, অর্থনীতি।
এই বিষয়গুলোর জন্য প্রস্তুতি নিতে সর্বপ্রথম ৮ম ও নবম-দশম শ্রেণী টেক্সবুকের সামাজিক বিজ্ঞান, ইতিহাস, পৌরণীতি ও অর্থনীতির বইগুলো ঝেড়ে মুখস্ত করতে হবে। সাথে সাথে কনফিডেন্স থেকে প্রকাশিত সংক্ষিপ্ত সম্পাদকীয় বইটি থেকে সাম্প্রতিক তথ্য সংগ্রহ করা ভাল হবে।

খ) আন্তর্জাতিক:
১. বিশ্বের বিভিন্ন মহাদেশের গুরুত্বপূর্ণ রাষ্ট্রগুলোর গুরুত্বপূর্ণ বিষয়-রাজধানী-মুদ্রা-সরকার ব্যবস্থা
২.পৃথিবীর গুরুত্বপূর্ণ ভূ-কৌশলগত অবস্থান, ভূ-রাজনৈতিক সংকট
৩.বিশ্বের বিভিন্ন আন্তর্জাতিক সংস্থা ও তাদের কার্যবলি
৪. সাম্প্রতিক আন্তর্জাতিক।

সাধারণ বিজ্ঞানঃ
১. সাধারণ বিজ্ঞান- যার জন্য ৭ম শ্রেণী থেকে ১০ শ্রেণীর টেক্স বুক যথেষ্ট।
২. কমপিউটার ও তথ্য প্রযুক্তি- যার জন্য ৯ম-দশম শ্রেণীর তথ্য প্রযুক্তি বইটি যথেষ্ট।
৩.সাম্প্রতিক সোস্যাল মিডিয়া, ই-কমার্স, তথ্যপ্রযুক্তির ব্যবহার সংক্রান্ত প্রশ্ন।
সাধারণ বিজ্ঞান থেকে বিভিন্ন রোগব্যাধি, খাদ্যগুণ, পুষ্টি, ভিটামিন থেকে প্রশ্ন আসতে পারে।

প্রার্থীদেরকে আলাদাভাবে “প্রাথমিক” এবং “প্রাক-প্রাথমিক” সহকারী শিক্ষক পদের জন্য আলাদাভাবে আবেদন করতে হবে না। মেধা তালিকার ভিত্তিতে প্রথম দিকে যারা থাকবে তাদেরকে নিজ উপজেলা/থানায় “প্রাথমিক সহকারী শিক্ষক” হিসেবে নিয়োগ প্রদান করবে এবং এর পরের মেধা তালিকা অনুযায়ী “প্রাক-প্রাথমিক সহকারী শিক্ষক” হিসেবে নিয়োগ প্রদান করবে।

বিবাহিত নারীরা চাইলে পিতার/স্বামীর যে কোনো একটি স্থায়ী ঠিকানা ব্যবহার করতে পারবেন এবং সেই অনুযায়ী উপজেলা/থানা কোটা নির্ধারিত হবে।

শেষ দিনের জন্য অপেক্ষা না করে আগেই আবেদনপত্র পূরণ সম্পন্ন করুন। শেষ দিনে প্রার্থীর স্থানীয় ইন্টারনেট ব্যান্ড-উইডথ এর সীমাবদ্ধতার কারণে আবেদন ফরম পূরণে সমস্যা দেখা দিতে পারে, তাই যথেষ্ট সময় হাতে রেখে আবেদন ফরম পূরণ করে দাখিল করুন***

Related Content
DailyResultBD এর শিক্ষা সংক্রান্ত সকল তথ্য পেতে আমদের ইউটিউব চ্যানেল সাবস্ক্রাইব করুন YouTube Channel