৪৩ তম বিসিএস এর প্রস্তুতি – গাইডলাইন – বুকলিস্ট ২০২১

৪৩ তম বিসিএস এর প্রস্তুতি – গাইডলাইন – বুকলিস্ট 2021। ৪১ তম বিসিএস শেষ – ৬ আগস্ট ২০২১ ইং হবে ৪৩ তম- হতাশ হবেন না – পড়াশোনা টা কনটিনিউ রাখেন, ৪৩ বিসিএস যদি টার্গেট থাকে বিসিএস তাহলে পড়া শুরু করুন ঝড়ের গতিতে। এগিয়ে থাকবেন । 43rd BCS Book List, Guidline Studyplan 2021.

৪১ তম বিসিএস এ এক এ তো বুঝে উঠার আগেই ডেট দিয়েছে , তারপরও প্রশ্নও বেসিক থেকে হয়েছে , যাদের পরীক্ষা তেমন ভালো হয় নাই, মন খারাপ করবেন না , সামনে ব্যাংক সহ অনেক পরীক্ষা রয়েছে, তাই সময় দিয়ে বেসিক ক্লিয়ার করে পড়ুন , এবার ৪১ তম বিসিএস এ আইসিটি থেকে ১৫ টার মধ্যে ৮ টা প্রশ্ন বেসিক ও বাকি ৭ টা এডভান্স লেভেল থেকে প্রশ্ন এসেছে ।

যারা বেসিক ক্লিয়ার করে পড়েছেন তারা ভালো করেছেন। আসলে গত ৩৮-৪০-৪১ তম বিসিএস থেকে প্রশ্ন এমন ই এডভান্স লেভেল এর হচ্ছে। সুতরাং বেসিক ক্লিয়ার করে পড়ুন ৪৩ এর জন্য ভালো করবেন। ভালো করে পড়লে, সাফল্য আসবেই , আর মাঝখানে ব্যাংক সহ অন্য পরীক্ষা গুলো দিতে থাকুন , হয়ে যাবে ইন শা আল্লাহ্‌।
*
সঠিক দিকনির্দেশনা, পরিশ্রম ও বেশিক ক্লিয়ার করলে প্রিলিতে পাশ করা সম্ভব না হলে অনেকটাই জটিল হয়ে যাবে আপনার জন্য যেটা আমরা দেখেছি ৪০, ৪১ তম বিসিএস এ। প্রিলি মানে খালি মুখস্থ বিদ্যা নয় অবলম্বন করতে হবে কিছু টেকনিক, আর সঠিক দক্ষতা , তাহলেই এ যাত্রাই পার।

বিকাশ এপ ডাউনলোড করে লগ ইনে পাবেন ১০০ টাকা ইনস্ট্যান্ট বোনাস, সাথে ৫০ টাকা বোনাস একদম ফ্রী - Bkash App Download Link শিক্ষার সব খবর সবার আগে জানতে DailyResultBD এর ইউটিউব চ্যানেলের সাথেই থাকুন। আমদের ইউটিউব চ্যানেল সাবস্ক্রাইব করুন YouTube Channel

মনে রাখবেন শর্টকাটে প্রিলি পার করা যাবে না তবে শর্টটেকনিক অবলম্বন করা যেতে পারে । এভারেজ টার্গেট করেন ১২০ মার্ক হলেই চান্স হবে। এখন কোন বই কিভাবে পড়বেন চলুন শুরু করি।

*প্রথমে সাবজেক্ট গুলোকে ২টি ক্যাটাগরিতে ভাগ করুন
ক্যাটাগরি ১ – 4 সাবজেক্ট (১৫০ মার্ক )
*
১। বাংলাঃ (৩৫ মার্ক ) বাংলার জন্য জর্জ এর MP3 ভালো করে পড়ুন , সহায়ক হিসেবে অগ্রদূত বা অভিযাত্রী বা শেখর এর বাংলাটা পড়তে পারেন । যে কোন একটা বই পড়লে আর কিছুই লাগবে না। বাংলায় একটা স্ট্রং জোন তৈরি করুন , বাংলা আপনাকে এগিয়ে রাখবে। বাংলা সাহিত্যের উপর গুরুত্ব দিন বেশি।

২। ইংরেজিঃ (৩৫ মার্ক ) ইংরেজি গ্রামারের জন্য Competitive Exams অথবা MASTER বা ইংলিশ টিউটর থেকে সিলেবাস দেখে বুঝে বুঝে পড়ুন। ইংলিশ লিটারেচার এর জন্য অরাকল এর মিরাকল থেকে প্রথম থেকে বিস্তারিত এর আগ পর্যন্ত পড়তে পারেন।
৩। গনিতঃ (৩০ মার্ক ) শাহীন স ম্যাথ অথবা খাইরুলস ম্যাথ বা ওরাকলের বই বা অন্য যে কোন বই পড়তে পারেন , মানসিক দক্ষতাঃ MP3 বা শাহীনস বা খাইরুলস বা প্রফেসরস দেখতে পারেন । গণিতটা প্রতিদিন প্যাকটিস করে নিজের আয়ত্তে নিন।গণিত দেখে যারা ভয় পান সিলেবাস দেখে দেখে অবশ্যই প্রতিদিন প্যাকটিস করুন।

৪। সাধারন জ্ঞানঃ(৫০ মার্ক ) বাংলাদেশ/আন্তর্জাতিকঃ- জর্জ এর MP3 বা আজকের বিশ্ব বা বেসিক ভিউ । সাম্প্রতিকঃ কারেন্ট অ্যাফেয়ার্স , দৈনিক প্ত্রিকা পড়ুন, দিনে অন্তত একবার টেলিভিশনের খবর দেখুন। টপ প্রায়রিটি দেন সাধারণ জ্ঞানে । সাধারণ জ্ঞানের কমন টপিক গুলো আগে ক্লিয়ার করুন , যে কোন পরীক্ষায় এগিয়ে থাকবেন।
ক্যাটাগরি ২ – 4 সাবজেক্ট (৫০ মার্ক)
*
(১ম ক্যাটেগরিতে কোন সাবজেক্ট খারাপ করলে , ২য় ক্যাটেগরি আপনাকে ব্যালেন্স করবে , তাই ২য় ক্যাটেগরি গুরুত্ব সহকারে পড়ুন)

৫। কম্পিউটার ও তথ্যপ্রযুক্তিঃ(১৫ মার্ক ) ” Self Suggestion কম্পিউটার ও তথ্যপ্রযুক্তি” বইটি দেখতে পারেন ,৪১ ও ৪০ তম বিসিএস এ সর্বোচ্চ কমন পাওয়া বই এটি এবং বিভিন্ন পরীক্ষায় শতভাগ অপশন সহ কমন পড়েছে । সংক্ষেপে প্রস্তুতি নিতে পারবেন, ভিন্ন মাত্রার বই । ৪০ ও ৪১ এ দেখেছি অনেক এডভান্স লেভেল থেকে প্রশ্ন হচ্ছে যা এই বই এ ডিপলি আলোচোনা করা আছে, এই বই থেকেই ফুল মার্ক কাভার করা সম্ভব। বিসিএস ও ব্যাংকের জন্য এক বই থেকেই কাভার হবে,যা আপনাকে এগিয়ে রাখবে ।
৬। বিজ্ঞানঃ (১৫ মার্ক ) “mp3 বিজ্ঞান” ও সেলফ সাজেশন বিজ্ঞান টা অবশ্যই দেখবেন । সময় দিয়ে ভালো করে পড়ুন কারন এখান থেকেও ভালো করা যায়। প্রশ্ন সবসময় গতানুগতিক হবে তা নয় , তাই শুধু বিগত সালের প্রশ্ন গুলোর উপর জোর নয় বেসিক ক্লিয়ার করে পড়ুন।

৭। নৈতিকতা ও সুশাসনঃ(১০ মার্ক ) এসুরেন্স গাইড বা MP3 বা প্রফেসরস এর যে কোন দুটি বই পড়বেন। মনে রাখবেন নৈতিকতা ও সুশাসন থেকেও ভালো মার্ক পাওয়া যায় যদি ভালো করে বার বার পড়ে যেতে পারেন, আর নেগেটিভ মার্ক এখানে করবেন না , যেটা জানেন সেটাই উত্তর করার চেস্টা করবেন ।
৮। ভূগোলঃ (১০ মার্ক ওরাকল ও এসুরেন্স গাইড দুটি বই পড়বেন, সাধারন জ্ঞান এর অনেক টপিকস এখানে কমন পাবেন, ভূগোলের দিকটা গুরুত্ব দিন। এই ৪ টি সাবজেক্ট আপনাকে অন্যদের থেকে পার্থক্য করবে, তাই এগুলো একবার ভালো করে শেষ করতে পারলে আপনি অন্যদের থেকে একধাপ এগিয়ে থাকবেন, তাই সময় করে এই ৪টি সাবজেক্ট আগে ভালো করে পড়ে নিন , পরে ধারাবাহিক ভাবে দ্রুত রিভিশন দিতে পারবেন।

সহায়ক বইঃ ৪৩ তম বিসিএস এর প্রস্তুতি - গাইডলাইন - বুকলিস্ট

যে কোন জবসল্যুশন বা ডাইজেস্ট, বাংলাদেশ ও আন্তর্জাতিক ম্যাপ, যে কোন মুক্তিযুদ্ধের বই , ভোকাবুলারির ভালো বই পড়তে পারেন।
শেষ কথাঃ
*
প্রথম ৪ টি সাবজেক্টকে প্রতিদিন টপ প্রায়রিটি দিয়ে বাকি ৪ টি সাবজেক্ট প্রতিদিন আপনার সুযোগ , সময় এবং সাধ্যমত একটা প্লান করুন , পড়তে থাকুন । বেসিক ক্লিয়ার করে পড়ুন ,জয় আপনারই হবে ইনশা আল্লাহ্‌ । বেশি বই পড়ে মনে না রাখার চেয়ে , ভালো মানের বই অল্প করে বার বার বেসিক ক্লিয়ার করে পড়লে মেমোরাইজ জোন তৈরি হবে, মনে থাকবে বেশি। এই বইগুলো পড়লে আপনার বিসিএস ছাড়াও অন্যান্য চাকরির জন্য সহজ হয়ে যাবে,যদি টার্গেট থাকে আপনার ৪১ তম বিসিএস বা সরকারি চাকরি বা বাংলাদেশ ব্যাংকের AD , তাহলে আজকে থেকেই শুরু করুন , সাফল্য আপনার কাছে ধরা দিতে বাধ্য। সত্যি যদি আপনি ক্যাডার হতে চান , সিরিয়াস হোন , প্রচুর পড়ুন , অনেক পড়া , নিজের আয়ত্তে আনুন , আলো একদিন দেখবেনই , তবে হাল ছাড়বেন না বরং প্রস্তুতি আর মনোবল টা আরো স্ট্রং করুন , হবেই হবে।কোন বই সংগ্রহে না থাকলে দ্রুত সংগ্রহ করুন , পিছিয়ে থাকবেন না , আপনি পিছিয়ে থাকলে অন্য আর একজন এগিয়ে যাবে … নিজেকে গতিশীল করুন , হেলায় সময় নষ্ট করবেন নাবরং পড়াশোনা টা ঠিক রাখুন , মনে করুন সামনে বিরাট অগ্নিপরীক্ষা অপেক্ষা করছে আপনার জন্য, প্রিলি পার হলে সামনের ধাপ না হলে আরেকটি অসফল গল্প যোগ হবে আপনার খাতায়। সিদ্ধান্ত আপনার।

সাজেশন ভালো লাগলে লেখাটি শেয়ার করতে পারেন। সবার প্রস্তুতি ভালো হোক সেই কামনায় ,
“একটি ভালো বই ও পরিশ্রম বদলে দিতে পারে আপনার সম্ভবনার দোয়ার ” তাই এখনি শুরু করুন ।

Related Content
DailyResultBD এর শিক্ষা সংক্রান্ত সকল তথ্য পেতে আমদের ইউটিউব চ্যানেল সাবস্ক্রাইব করুন YouTube Channel